Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / ২৭ বছর কোমায় থাকার পর যেভাবে জ্ঞান ফিরে পেলেন মা

২৭ বছর কোমায় থাকার পর যেভাবে জ্ঞান ফিরে পেলেন মা

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: গাড়ি দুর্ঘটনায় পর এক মহিলা কোমায় চলে যান। এক বছর বা দু-বছর নয় প্রায় ২৭ বছর কোমাতে ছিলেন এই ভদ্রমহিলা। এক দিন হঠাৎ করে তিনি জ্ঞান ফিরে পান। বিশেষজ্ঞরা এটিকে একটি আশ্চর্য ঘটনা হিসেবেই দেখছেন। যখন দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিলেন তখন এই মহিলার বয়স ছিল মাত্র ৩২ বছর।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাসিন্দা মুনিরা আবদুল্লাহ ১৯৯১ সালে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। গুরুতর আঘাত পেয়েছিলেন তিনি। তিনি ব্রেনেও আঘাত পেয়েছিলেন। তিনি তাঁর ছেলেকে স্কুল থেকে আনতে যাচ্ছিলেন।

এই ভদ্রমহিলার গাড়ি বাসের সঙ্গে ধাক্কা মারে। দুর্ঘটনার পর সেখানেই পড়ে থাকেন মুনিরা। পরে তাকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়া হয়। ঘটনার সময় বাচ্চা তাঁর কোলেই ছিল। বাচ্চাকে চোট লাগতে দেননি মুনিরা।

এরপর অনেক দেশে চিকিৎসা করান মুনিরা আব্দুল্লাহ। ইউএই-তে উন্নত মানের চিকিৎসা ছাড়াও লন্ডন ও জার্মানির বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হয় তাকে। তিনি কোনো চিকিৎসাতেই সাড়া দিচ্ছিলেন না।
কোমাতে
২০১৭ সালে ক্রাউন প্রিন্স কোর্টের সহায়তায় পুনরায় জার্মানিতে পাঠানো হয়। এই সমস্ত কথা তাঁর ছেলে সংযুক্ত আরব আমিরাতের একটি প্রথম শ্রেনীর দৈনিকের সঙ্গে শেয়ার করেন। তাঁর ছেলে বলেন, আমি এই কারণেই কথাগুলি বলছি, যেকোনো পরিস্থিতিতে যেন মানুষ আশাহত না হয়।
জার্মানিতে এই মহিলার অনেকগুলি সার্জারি করানো হয়। এক বছর পর একদিন হাসপাতালে তাঁর ছেলের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। ঠিক সেই সময় তার মায়ের জ্ঞান ফিরে আসে। উমর বলেন, আমার মা মনে করছিল আমার জীবন বিপদের মধ্যে আছে।
কথায় আছে না সন্তান ও মায়ের সম্পর্ককে কোনো ভাষায় বর্ণনা করা যাবে না। এটি একটি অন্য বন্ধন।
আরও পড়ুন: কাতারের মরুভূমিতে তৈরি হলো গোলাপ আকৃতির চোখ ধাঁধানো যাদুঘর

Check Also

বিমানের পাইলট

প্রথমবারের মত মা ও মেয়ে বিমান ওড়ালেন একসঙ্গে। আরও এক মেয়ে পাইলট!

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: ফ্লাইটের ককপিটে মা ও মেয়ে। দুজনেই পাইলট। এই ছবিটি সারা বিশ্বে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *