Home / জাতীয় / স্মৃতি ইরানি নিজের সমালোচকদের উত্তরের জবাব দিলেন নিজের মুখ বাঁধা ছবি পোস্ট করে

স্মৃতি ইরানি নিজের সমালোচকদের উত্তরের জবাব দিলেন নিজের মুখ বাঁধা ছবি পোস্ট করে

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া নির্দেশিকার অপর প্রতিক্রিয়া দিচ্ছিলেন। তিনি সাবরিমালা মন্দিরে সকল বয়সের মহিলাদের প্রবেশের ঘোর বিরোধী ছিলেন। যে কারণে স্মৃতি ইরানি সোশ্যাল মিডিয়াগুলিতে ব্যাপক পরিমাণে ট্রোল হচ্ছিলেন। নিজের ইনস্টাগ্রাম একাউন্টে হাত-পা ও মুখ বাঁধা একটি ছবি পোস্ট করে সেইসব বিতর্কের জবাব দিলেন বলে মনে করছে অনেকে।
নিজের পুরনো এক টিভি সিরিয়ালের একটি ছবি পোস্ট করেন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। এই ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন আমরা বললে সকলে বলবে বলছি! তাঁর এই ছবি অনেকেই অনেকেই পছন্দ করছে এবং আবার প্রায়ই মানুষই পুনরায় এই উত্তরে সন্তুষ্ট নন। ছবিটি পোস্ট হওয়ার সাথে সাথেই, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে আরো ব্যাপক পরিমাণে ট্রোল হতে শুরু করেন স্মৃতি ইরানি।
কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি
উল্লেখ্য, মঙ্গলবার স্মৃতি ইরানি বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ওপর আমার কিছু বলা উচিত নয় কারন আমি একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। এটাতো একটা সাধারণ জ্ঞান। আপনি কি আপনার পিরিয়ডের রক্তে ভেজা স্যানিটারি ন্যাপকিন আপনার বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে যাবেন? নিয়ে যাবেন না এটাই স্বাভাবিক। তাহলে ভগবানের ঘর অর্থাৎ মন্দিরে গেলে কিভাবে স্যানিটারি ন্যাপকিন নিয়ে যাবেন?’


স্মৃতি ইরানি নিজের সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেছেন, আমি একজন হিন্দু ঘরের মেয়ে। আমি একজন পার্সি ধর্মাবলম্বী ব্যাক্তিকে বিয়ে করেছি। আমি বিশ্বাস করি আমার বাচ্চারাও পার্সি ধর্মই পালন করবে। তিনি আরো বলেন, যখনই আমি মন্দিরে যায় বাচ্চারা তাঁর বাবার দায়িত্বে থাকে। ওদেরকে মন্দিরে যেতে নিষেধ করে দেয়া হয়। আমি রাস্তাতে দাঁড়িয়ে বা গাড়িতে বসে স্বামী ও বাচ্চাদের জন্য অপেক্ষা করতে থাকি’।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এরপরে টুইটারের মাধ্যমে তার বক্তব্য রাখেন। সবকিছু নিয়েই বেশ সমালোচনার কেন্দ্রে আছেন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। সম্প্রতি বিহারের এক আদালতে তার বিরুদ্ধে মামলাও করেছেন একজন।
আরও পড়ুন: ডেলিভেরি বয়ের কেরামতিতে এক ডুবন্ত শিশু বেঁচে গেলেন

Check Also

ধর্ষন ও ভিডিও ধারন

নোয়াখালীর ধর্ষণ ঘটনার মতো গোপালগঞ্জে ধর্ষন ও ভিডিও ধারন

ধর্ষন ও ভিডিও ধারন – নোয়াখালীতে বিবিস্ত্র করে নারী নিপীড়নের রেশ এখনো কাটেনি এরি মধ্যে …