Home / জাতীয় / সড়ক পরিবহন আইন – দুর্ঘটনা হলেও ক্ষতিপূরণ পাবেন না যাত্রী

সড়ক পরিবহন আইন – দুর্ঘটনা হলেও ক্ষতিপূরণ পাবেন না যাত্রী

সড়ক পরিবহন আইন – নতুন সড়ক পরিবহন আইনে যাত্রী ও পথচারীর বীমা ছাড়াই গাড়ি চলতে পারবে সড়কে।সেই সঙ্গে কোন ধরনের দূর্ঘটনা হলে ক্ষতিপূরণ পাবেন না যাত্রীরা। বিআরটি এ বলছে নতুন আইনে বীমার বাধ্যবাধকতা না থাকলেও তৃতীয় পক্ষের জন্য কল্যান তহবিল গঠন করা হচ্ছে।পরিবহণ বিশেষজ্ঞরা বলছেন সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ও দূর্ঘটনার ক্ষয়ক্ষতি কমাতে অবশ্যই বীমার প্রয়োজন রয়েছে।

১৯৮৩ সালের মোটরযানের অধ্যাদেশের ১০৯ ধারা অনুযায়ী যানবাহনের জন্য তৃতীয়পক্ষ বা যাত্রীর ঝুকি বীমা বাধ্যতামূলক ছিলো।এই আইনের ১৫৫ ধারায় বীমা না থাকলেও দণ্ডের বিধান ছিলো।কিন্তু ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহণ আইনের ধারা ৬০ এর ১,২ ও ৩ উপধারা অনুযায়ী বীমা বাধ্যতামূলক নয়।তাই বীমা না থাকলেও মামলা দিতে পারবেনা আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

গতবছরের পহেলা নভেম্বর থেকে নতুন আইন কার্যকর হলেও এ নিয়ে অনেকের মধ্যেই নেয় সচ্চ ধারনা। তাই বিষয়টি অবহিত করে এরি মধ্যে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে চিঠিও দিয়েছে BRTA।সংশ্লিষ্টরা বলছেন কোন দুর্ঘটনায় পরিবহণ কিংবা যাত্রীর ক্ষতি হলে বীমার মাধ্যমে ক্ষতি পূরণ পাওয়া যেতো।তাই তৃতীয় পক্ষের জন্য বীমা বন্ধ করা হলেও প্রথম পক্ষের বীমা অবশ্যই বাধ্যতামূলক করা উচিৎ।

সবার আগে সর্বশেষ খবর পেতে ও পড়তে ভিজিট করুনঃ সবার খবর

বিআরটি এ বলছেন তৃতীয় পক্ষের বীমার মাধ্যমে যাত্রীরা তেমন লাভবান হতেন না।তাই নতুন আইনে এটা বাধ্যতামূলক করা হয়নি।তবে যাত্রীদের ক্ষতিপূরনের জন্য কল্যান তহবিল গঠন করা হচ্ছে।তবে দুর্ঘটনার পর যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ যাতে নিশ্চিত হয় সেই ব্যাপারে সরকারকে সজাগ থাকতে হবে বলে অভিমত বিশ্লেষকদের।

Check Also

চট্টগ্রামের খবর

চট্টগ্রামের খবর – ৯৯৯ এ কল দিয়ে রক্ষা পেল দুই কিশোরী

চট্টগ্রামের খবর – ইপিজেডের একটি গার্মেন্টেসের শ্রমিক ছিলো দুই কিশোরী কিন্তু করোনাকালীন সময়ে চাকরি হারিয়ে …