হঠাৎ করে শক্তিমান সিরিয়ালটি বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণ কি?

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: ভারতীয় সুপার হিরো হিসেবে কারো নাম যদি প্রথমেই আসে, তবে সেই নামটি শক্তিমান ছাড়া অন্য কারো হতেই পারে না। একসময়ে বাচ্চাদের প্রিয় টিভি সিরিয়াল ছিল ‘শক্তিমান’। তখনকার সময়ের শিশু-কিশোরদের প্রতি রবিবার নিয়ম করে টিভির সামনে বসা চাই-ই শক্তিমান সিরিয়াল দেখার জন্যে। এই সিরিয়ালটির জন্যে সারা সপ্তাহ অপেক্ষা করে থাকতো সকলেই।
শক্তিমান
কিন্তু হঠাৎ করে ২০০৫ সালে এসে সবাইকে বিস্মিত করে শক্তিমান সিরিয়াল বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু আজও মানুষ কেন সিরিয়ালটি বন্ধ হয়েছিল, এর কারণ খুঁজে পাননি। চলুন জেনে আসি শক্তিমান সিরিয়াল টি বন্ধ হওয়ার কারনটি।

শক্তিমান বাচ্চাদের কাছে একটি আইডল হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠেছিল। শুধু কি বাচ্চারা এই সিরিয়ালটি পছন্দ করতেন তা কিন্তু নয়। বড়রাও সমানভাবেই সিরিয়ালটি পছন্দ করতেন। কিন্তু দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ‘শক্তিমান’-এর ওপর অনেক অভিযোগ আসতে শুরু করে। কারন এই সিরিয়ালটি দেখার পর অনেক বাচ্চাই প্রাণ হারিয়েছিলেন। শক্তিমানের মত স্টান্ট করতে গিয়ে বাচ্চা বাচ্চা ছেলেরা অনেক উঁচু ছাদ থেকে লাফও দিয়েছিল।
শক্তিমানের গল্প
২০০০ সালের পর থেকে প্রাইভেট টিভি চ্যানেলগুলি সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা লাভ করতে শুরু করেছিল। এই সময়েই বেশ কিছু কার্টুন স্যাটেলাইট চ্যানেল লঞ্চ করে। এর ফলে বাচ্চারা সেই সব চ্যানেলে দেখানো শিশু-কিশোরদের উপযোগী আরও অনেক আকর্ষক প্রোগ্রাম তাদেরকে আরও বেশি আকৃষ্ট করে। আস্তে আস্তে শক্তিমান-এর টিআরপি নিচের দিকে নামতে থাকে। এই জন্য শক্তিমান সিরিয়ালটি অনেকটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। সিরিয়ালটির বাজেট সেই সময়কার হিসেবে খুব বেশি ছিল। কিন্তু টিআরপি পড়ে যাওয়াতে সিরিয়ালের পরিচালক-প্রযোজকরা বাধ্য হন সিরিয়ালটি বন্ধ করতে।

তবে শক্তিমান সিরিয়ালটি যারা দেখেছেন, তারা কখনই ভুলতে পারবে না এই সিরিয়ালের মুখ্য অভিনেতা মুকেশ খান্নাকে। যাকে আমরা শক্তিমান হিসেবে চিনি। কিছুদিন আগেও শোনা যাচ্ছিল, ‘শক্তিমান’ আবার শুরু হবে। কিন্তু সেটা শুধুই গুজব ছিল বলে জানা যাচ্ছে।
আরও পড়ুন: ভারতীয় ক্রিকেটাদের বিয়ের কার্ড, যা আপনি হয়তো আগে দেখেননি

Check Also

ফটোশুট

Video: ফটোশুটের সময় মডেলের সঙ্গে শুকর যা করলো

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: বাহামাসে এমন একটি ঘটনা ঘটেছে যা দেখে সকলে আশ্চর্য হয়ে যায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.