পরমাণুর চাইতে এক হাজার গুন শক্তিশালী এই বোমা! মাত্র পাঁচটি দেশের আছে

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: কয়েক মাস আগে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রপ্রধান কিম জং উন কয়েকটি পারমাণবিক বোমা পরীক্ষা করেছিলেন। এই সময় উত্তর কোরিয়ার একনায়ক প্রায় অর্ধ ডজন পারমাণবিক পরীক্ষার পর একটি হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষা করেন। আপনারা নিশ্চয় পরমাণু বোমা সম্পর্কে অনেক কথায় শুনেছেন। কিন্তু খুব কম মানুষ হাইড্রোজেন বোমার সম্পর্কে জানেন।
হাইড্রোজেন বোমা
হাইড্রোজেন বোমা কতটা শক্তিশালী তা আপনারা কল্পনা করতে পারবেন না। একটি হাইড্রোজেন বোমা প্রায় ১০০০ পারমাণবিক বোমার ক্ষমতার সমতুল্য। প্লাটিনিয়াম এবং ইউরেনিয়ামের ফ্র্যাগমেন্টেশানের তুলনায় আরো শক্তিশালী ফ্র্যাগমেন্টেশান ঘটে হাইড্রোজেন বোমাতে।

হাইড্রোজেন বোমা কে আবিস্কার করেন?

১৯২২ সালে প্রথম হাইড্রোজেন বোমা সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়। তবে হাঙ্গেরিয়ান-আমেরিকান বিজ্ঞানী এডওয়ার্ড টেলারকে ‘ফাদার অফ দ্য হাইড্রোজেন বোম’ বলা হয়। ১৫ জানুয়ারি ১৯০৮ সালে হাঙ্গেরিতে এডওয়ার্ড টেলার জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৩০ সালে তিনি আমেরিকাতে চলে আসেন। তিনি আমেরিকান সরকারের কাছ থেকে সমস্ত ধরনের সাহায্য পান। ১ নভেম্বর ১৯৫২ সালে প্রথম হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষা করা হয়। এই প্রজেক্টকে সাফল্যের দৌড় গোড়ায় পৌছতে যে দুজন বিজ্ঞানী কঠোর পরিশ্রম করেন তারা হলেন Edward Teller, Stanislaw M. Ulam। এছাড়াও আমেরিকার আরও অন্যান্য বিজ্ঞানীও ছিলেন হাইড্রোজেন বোমা তৈরিতে।

এডওয়ার্ড টেলার
এডওয়ার্ড টেলার

কোন কোন দেশের হাতে আছে হাইড্রোজেন বোমা?

আমেরিকার দেখা দেখি অন্যান্য রাষ্ট্র হাইড্রোজেন বোমা তৈরির প্রজেক্ট হাতে নেয়। আমেরিকার সাথে রাশিয়া, ব্রিটেন, ফ্রান্স এবং বর্তমানে উত্তর কোরিয়ার হাতে আছে আইড্রোজেন বোমা।
Read More: যদি পৃথিবীতে এক সঙ্গে পরমাণু বোমা ফাটে তবে কি হবে?

Check Also

ভালো কাজ

ভালো কাজ করলেই মিলবে খাবার, লাগবে না কোন টাকা

ভালো কাজ করলেই মিলবে খাবার, লাগবে না কোন টাকা কথাটা শুনতে অবাক করার মতো হলেও …

Leave a Reply

Your email address will not be published.