Breaking News
Home / কবিতা / রবিবারের সান্ধ্য কবিতা আসর-১৩

রবিবারের সান্ধ্য কবিতা আসর-১৩


মুজিব ইরম

কবি মুজিব ইরম: জন্ম বাংলাদেশে, মৌলভীবাজার জেলার নালিহুরী গ্রামে, পারিবারিক সূত্র মতে ১৯৬৯, সনদপত্রে ১৯৭১।

প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ:
মুজিব ইরম ভনে শোনে কাব্যবান ১৯৯৬, ইরমকথা ১৯৯৯, ইরমকথার পরের কথা ২০০১, ইতা আমি লিখে রাখি ২০০৫, উত্তরবিরহচরিত ২০০৬, সাং নালিহুরী ২০০৭, শ্রী ২০০৮, আদিপুস্তক ২০১০, লালবই ২০১১, নির্ণয় ন জানি ২০১২, কবিবংশ ২০১৪, শ্রীহট্টকীর্তন ২০১৬, চম্পূকাব্য ২০১৭, আমার নাম মুজিব ইরম আমি একটি কবিতা বলবো ২০১৮। উপন্যাস/আউটবই: বারকি ২০১১, মায়াপীর ২০০৯, বাগিচাবাজার ২০১৫। গল্পগ্রন্থ: বাওফোটা ২০১৫। শিশুসাহিত্য: এক যে ছিলো শীত ও অন্যান্য গল্প ২০১৬। মুক্তিযুদ্ধের উপন্যাস: জয় বাংলা ২০১৭। এছাড়া প্রকাশিত হয়েছে ধ্রুবপদ থেকে মুজিব ইরম প্রণীত কবিতাসংগ্রহ: ইরমসংহিতা ২০১৩, বাংলা একাডেমি থেকে নির্বাচিত কবিতার বই: ভাইবে মুজিব ইরম বলে ২০১৩, Antivirus Publications, Liverpool, England থেকে নির্বাচিত কবিতার অনুবাদ গ্রন্থ: Poems of Mujib Erom 2014, ধ্রুবপদ থেকে উপন্যাসসমগ্র: মুজিব ইরম প্রণীত আউটবই সংগ্রহ ২০১৬, পাঞ্জেরী থেকে: প্রেমের কবিতা ২০১৮, বেহুলা বাংলা থেকে: শ্রেষ্ঠ কবিতা ২০১৮।

পুরস্কার: মুজিব ইরম ভনে শোনে কাব্যবান কাব্যগ্রন্থের জন্য পেয়েছেন বাংলা একাডেমি তরুণ লেখক প্রকল্প পুরস্কার ১৯৯৬। বাংলা কবিতায় সার্বিক অবদানের জন্য পেয়েছেন সংহতি সাহিত্য পদক ২০০৯, কবি দিলওয়ার সাহিত্য পুরস্কার ২০১৪। কবিবংশ কাব্যগ্রন্থের জন্য পেয়েছেন ব্র্যাক ব্যাংক-সমকাল সাহিত্য পুরস্কার ২০১৪। শ্রীহট্টকীর্তন কাব্যগ্রন্থের জন্য পেয়েছেন সিটি-আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার ২০১৬। সম্প্রতি পেয়েছেন বাংলা একাডেমি সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ পুরস্কার ২০১৭

কবিতা

ছবি: অনির্বাণ পাল

মুজিব ইরম-এর তিনটি কবিতা

গীত

আমের বাগানে এতো কুয়াশা ক্রন্দন!

এই গীতে ধরেছে ডালিম কৃষ্ণরাঙ্গা ডালে। ‘আইলায় না, আইলায় না’ ডাকে হৃদয় ভিজায়।

জেগে আছি শীত হয়ে রাত্রি দ্বিপ্রহর!

কিসের অপেক্ষা এতো, কিসের মাতম! কিসের দখিনা ক্ষত কান্না হয়ে আসে- আমার ইরম নাকি আসিবা গো, আজ ফিরে নিকুঞ্জ মন্দিরে!

কসম

লক্টন জবার ডাল সেই কবে দিয়েছিলে তুমি
দিয়েছিলে রাধাচূড়া
তুলসির চারা…

আমার বাগানে
মাধ্যমিক মনে
তারা সব ফুটেছিলো খুব…

রোজ ভোরে মা আমার
ওজিফা পড়ার শেষে জল ছিটাতেন
জবাগাছে
তুলসিচারায়
রাধাচূড়াতলে…

তুলসির রসে
মায়ের ছোঁয়ায়
একদা আমার জ্বর কমে গিয়েছিলো…

ঈশ্বর জানেন
তুমি তো আমার জানের টুকরা ছিলে
পড়শিনী ছিলে, আজও আছো, খোদার কসম…

নিবেদন

আবারও বসতে যাবো একদিন জলের ছায়ায়
হিজল তমাল
করচের ডাকে
হাওরে হাওরে…

আল্লার কসম
তোমাকে রাখিয়া আমি যাই নি কোথাও…

তোমার নয়নতারা ঝোপে
আমি তো কুয়াশা হয়ে আছি
তুমি রোজ জল ঢালো
স্পর্শ রেখে যাও
শীত শীত ভোরে…

নিরলে দেখিও
ঝরে পড়ি আমি এক বটপাকুড়ের পাতা
নড়বড়ে ডাল
তোমার উঠানে, ফজর ওয়াক্তে, আহ্নিক বেলায়…

আরও পড়ুন: রবিবারের সান্ধ্য কবিতা আসর-১২

Check Also

রবিবারের ছোটগল্প

রবিবারের ছোটগল্প পাখি হওয়ার সাধ লিখেছেন চন্দ্রশিলা ছন্দা

ছোটগল্প পাখি হওয়ার সাধ চন্দ্রশিলা ছন্দা Illustration: Preety Deb জানালার গ্রীলে মুখ লাগিয়ে সবুজের উদাস …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *