Breaking News
Home / জাতীয় / বাস্তব ঘটনার নিরিখে লেখা উপন্যাস লাল চিনার পাতা

বাস্তব ঘটনার নিরিখে লেখা উপন্যাস লাল চিনার পাতা

শিবেন মজুমদার
বুক রিভিউ
দেবশ্রী চক্রবর্তীর “লাল চিনার পাতা” সমকালীন বাংলা সাহিত্যের একটি উল্লেখযোগ্য উপন্যাস । বাস্তব ঘটনার নিরিখে সত্যের আলোকে এই উপন্যাস নির্মিত হয়েছে । উপন্যাসটির পাতায় পাতায় লেখিকা কাশ্মীরি পন্ডিতদের সমসাময়িক জীবনের জ্বলন্ত সমস্যা তুলে ধরেছেন । টান টান উত্তেজনার মধ্যে টান টান লেখা পাঠক গ্রন্থটিকে শেষ পর্যন্ত পড়তে বাধ্য হয় । শব্দের ব্যবহার, বাক্য গঠন, চরিত্রায়ণ, বিনম্রতা, স্বচ্ছ দৃঢ়তার ধ্বনি এমন হাজারো অভিজ্ঞতা আমাদের কানে বারবার প্রতিধ্বনিত হয়ে ফিরে আসে, “ লাল চিনার পাতা “ থেকে । লেখিকা একরাশ ক্ষত বুকে ছবি আঁকেন কাশ্মীরি পন্ডিতদের আত্মকথন নিয়ে । সাথে সাথে পাঠকও ক্ষতবিক্ষত হয়ে ওঠেন অন্তর আত্মার বাস্তব অভিমানে । বোধকরি লেখিকা মানসিক দ্বন্দ্ব, টানাপোড়েন, রাজনৈতিক অভিক্ষা ইত্যাদি ভেদ করে এই উপন্যাস লেখার কাজে হাত দিয়েছিলেন । কলমকেই তিনি হাতিয়ার করে নিজস্ব অভিজ্ঞতাবলে তুলে ধরেছেন কাশ্মীরি পন্ডিতদের যন্ত্রনার দগ্ধ ইতিহাস । তবে উপন্যাস বলা কিছুটা শক্ত । কিন্তু কাহিনী জানা অতীব দরকার হয়ে পড়ে । কারন লেখিকা এই উপন্যাসে বাস্তব ঘটনা তুলে ধরে মাইল মাইল পথ অতিক্রম করেছেন । একজন লেখক হিসেবে এটা কোনমতে কম কৃতিত্বের নয় । আমার ধারনা যত দিন যাবে এই গ্রন্থটির ঐতিহাসিক মূল্য ততো বাড়তে থাকবে । “লাল চিনার পাতা” আগামী দুশোবছর পর ইতিহাসবেত্তাদের কাছে আকরগ্রন্থ হিসেবে ধরা দিলে আশ্চর্য হবার কিছু নেই । সত্যের সন্ধানে বাস্তবের আলো ফেলে লেখিকা আতশ কাচের সাহায্যে যাঁচাই করে দেখে নিয়েছেন সমকালীন কাশ্মীরি পন্ডিতদের অবস্থা । তাইতো আজও আমরা প্রাচীন ভারতের ইতিহাস লিখতে গেলে কলহন, সন্ধ্যাকর নন্দী, তুলসিদাস প্রমুখ লেখক, লেখিকাদের সাহায্য নিয়ে থাকি । তেমন-ই হয়তো আগামীতে কাশ্মীরি পন্ডিতদের ইতিহাস লিখতে গেলে দেবশ্রী চক্রবর্তীর ‘লাল চিনার পাতা’ গ্রন্থের সাহায্য নিতে হবে ইতিহাসবেত্তাদের ।
আরও পড়ুন: রবিবারের ছোটগল্প রাজার ফাঁদ লিখেছেন সসীম কুমার বাড়ৈ

Check Also

বিশ্বের ৮০০০ ছাত্রকে পিছনে ফেলে ১৬ বছরের ভারতীয় জিতলো ২.৯ কোটি টাকা

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: মাত্র ১৬ বছর বয়সে চার লক্ষ আমেরিকান ডলার, ভারতের মুদ্রায় যা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *