Breaking News
Home / শরীর স্বাস্থ্য / কিভাবে আপনার যৌন জীবনে শিল্পের ছোঁয়া লাগাবেন

কিভাবে আপনার যৌন জীবনে শিল্পের ছোঁয়া লাগাবেন

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: দাম্পত্য একটি আর্ট। একে সুন্দর করে গড়ে তোলায় দাম্পত্যের প্রধান শর্ত। আবার অনেকেই মনে করেন দাম্পত্যের মধ্যে কোনো রকম শর্ত রাখতে নেই। কারণ দাম্পত্য হলো কাচের গ্লাসের মতো। শর্ত থাকলেই বিবাদ বাড়বে। সৃষ্টি হবে দুজনের ভেতর বিবাদ ও যন্ত্রণা।

সাইকোলজিস্টরা বলছেন, দাম্পত্যের ভেতর শারীরিক সম্পর্কটি একটি অংশ মাত্র। স্বামী-স্ত্রীর ভেতর শারীরিক সম্পর্ক মধুর হৃদ্যতার সৃষ্টি করে। এই ব্যাপারটিতে অনেকেই সেভাবে খেয়াল রাখেন না। আবার অনেকেই এটিকে দুটি শরীরের ‘খিদে’-তেই সীমাবদ্ধ রাখেন! আর এখানেই দম্পতির মাঝে আসে অনিচ্ছা, অনীহা, অতৃপ্তি ও অবসাদ। মনোবিদদের মতে, দাম্পত্যে যদি বন্ধুত্ব ও প্রেম না থাকে তো সেই সম্পর্কের সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যেতে বিশেষ সময় লাগে না। তাই দম্পতি হোক বা লিভিং পার্টনার, দুজনেরই খেয়াল রাখা উচিত চাওয়া-পাওয়া অর্থাৎ চাহিদার দিকে। দুজনেই দুজনের চাহিদাকে সম্মান করা একান্ত দরকার। নইলে কোনো সম্পর্ক গড়তে তো পারেই না, বরং কাচের দেওয়ালের মতো ভেঙে যায় আচম্বিতেই।
দাম্পত্য জীবন
সত্যিকারের বন্ধুত্ব না থাকলে সেই মানষিক চাপ শারীরিক মিলনেও ব্যাঘাত আনবেই- একথা জোরের সঙ্গেই বলা যায়। তাই সকল দম্পতি বা লিভিং পার্টনারের সতর্ক থাকা দরকার তাদের সম্পর্কের গতি প্রকৃতির দিকে। যেন কেউ কারও মধ্যে কোনো কিছু গোপন না রাখেন। যেকোনো গোপোনীয়তাই সম্পর্কে ফাটল তৈরি করে। এতে স্ট্রেসও সৃষ্টি হবে দুজনের পারিবারিক ও শারীরিক ক্ষেত্রে। নিজেদের মধ্যে বিশ্বাস ও বন্ধুত্ব তৈরি করুন মজবুত ভাবে। এতে দুজনেই দুজনের কাছে স্ট্রেস ফ্রী থাকতে পারবেন। স্ট্রেস ফ্রী যৌন সম্পর্ক আপনার শরীর ও মন দুটোকেই সুন্দর রাখবে।

মনোবিদরা আরও বলছেন, অনেকেই তাদের কাছে আসেন নানা সমস্যা নিয়ে। ওদের মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন কাজের প্রেশারে থাকেন। ঘুমোন কম। পর্যাপ্ত ঘুম না হলে শরীর বিক্ষিপ্ত হয়ে পড়বে। প্রভাব পড়বে দৈনন্দিন কাজের ওপর, শরীরের ওপর। এমনকি স্ট্রেস ও কম ঘুমের জন্যে যৌন-সাচ্ছন্দ্যও হারান অনেকেই।
আরও পড়ুন: দ্রুত ব্রণ দূর করার উপায় কি? নিয়ম করে মাছ খেলেই সহজে দূর হতে পারে ব্রণ

Check Also

সিজোফ্রেনিয়া রোগ

সিজোফ্রেনিয়া একটি মানষিক রোগ: লক্ষণগুলিও অদ্ভুত

সবার খবর, হেল্থ ডেস্ক: সিজোফ্রেনিয়া একটি মানসিক অসুখ। এই আসুখটিতে যেকোনো বয়সের মানুষ আক্রান্ত হতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *