Breaking News
Home / জানা অজানা / স্ত্রী বদল করার উৎসব যেখানে প্রচলিত আছে

স্ত্রী বদল করার উৎসব যেখানে প্রচলিত আছে

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: কথায় আছে আমাদের দেশের মহিলারা সাজগোজ করতে যে সময় ব্যয় করে ওই সময়ের মধ্যে অনেক জন পরুষ তৈরি হয়ে যেতে পারেন। কিন্তু পৃথিবীতে এমনও জায়গা আছে যেখানে মহিলাদের ভালোবাসা পেতে পুরুষদেরকে অনেকটাই পরিশ্রম করতে হয় সাজগোজ করতে গিয়ে। শুধু তাই নয় এই আদিবাসী সমাজে স্ত্রী পরিবর্তন করার সম্পূর্ণ স্বাধীনতা আছে। যাকে তারা একটি উৎসব রূপে দেখে থাকেন।
আদিবাসিদের বিয়ে
দক্ষিণ আফ্রিকার সাহেল নামের একটি স্থানে উডাবি নামের আদিবাসীরা বাস করেন। সাহেল দক্ষিণ আফ্রিকার মরুভূমি যা সমস্ত দক্ষিণ আফ্রিকাকে বেষ্টন করে আছে। এখানে বসবাসকারী পুরুষ উডাবি আদিবাসীদের নিজের চেহারার ওপর বিশেষ নজর দিতে হয়। উডাবি আদিবাসীদের মধ্যে অন্যের স্ত্রীকে চুরি করার একটি প্রচলন চলে আসছে আদিকাল থেকেই। ওখানে নিজের সঙ্গী নির্বাচন করার সম্পূর্ণ অধিকার মহিলাদের ওপর নির্ভর করে। পুরুষদেরকে এমনভাবে সাজগোজ করতে হয় যাতে মহিলারা তাদের দেখে আকর্ষিত হয়। শুধুমাত্র এই উৎসবের সময় নয় সবসময়ই পুরুষদের নিজের দিকে খেয়াল রাখতে হয় যাতে তাদের সঙ্গিনীরা হাতছাড়া না হয়ে যায়।
আদিবাসি
যখন তাদের মধ্যে স্ত্রী বদলানোর উৎসব শুরু হয় তখন মহিলারা এসে একটি নির্দিষ্ট ফাঁকা জায়গায় বসে পড়েন। এখানে বিবাহিত বা অবিবাহিত দুই ধরনের মহিলারা থাকেন। তারপর উৎসবে যেসব পুরুষ অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক তারা সাজগোজ করে সেই নির্দিষ্ট স্থানে উপস্থিত হয়। শুধু সেখানেই থেমে থাকে না পুরুষদের কাজ। তাদেরকে নাচতে হয় যেন তাদের দিকে মহিলাদের নজর পড়ে। এরপর মহিলারা নির্দিষ্ট সঙ্গী বাছাই করেন। একজন মহিলা যখন একজন পুরুষকে চুমু খায় তখনই তাদের বৈধ বিবাহিত দম্পতি হিসেবে ধরে নেওয়া হয়। নিজের স্ত্রীকে অন্যের কাছে চলে যেতে দেখেও কিছু করার থাকে না স্বামীর। তাছাড়াও এখানকার মহিলাদের একাধিক পুরুষের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করার সম্পূর্ণ স্বাধীনতাও আছে।
উডাবি আদিবাসীদের পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর আদিবাসী হিসেবে ধরা হয়। এখানকার পুরুষরা সঙ্গে নানান ধরনের অলংকার বহন করেন।
আরও পড়ুন: স্ত্রীর সেক্স ভিডিও টেপ দেখার পর সন্তানের সামনেই গুলি

Check Also

আমেরিকা

৯১ লক্ষ টাকা বেতনের চাকরি! পদ খালি দুটি

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়ার একটি দ্বীপে বাড়ি দেখাশোনা করার জন্য দুজন ব্যক্তির প্রয়োজন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *