জাতীয় – সবার খবর https://www.sobarkhobor.com সব সময় বাংলা খবর Thu, 18 Mar 2021 12:51:33 +0000 en-US hourly 1 https://wordpress.org/?v=6.2.2 https://www.sobarkhobor.com/wp-content/uploads/2017/12/cropped-খবর-2-32x32.png জাতীয় – সবার খবর https://www.sobarkhobor.com 32 32 করোনার ৩য় ঢেউ – করোনা আবার ভয়ংকররূপে ফিরছে https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a7%a9%e0%a7%9f-%e0%a6%a2%e0%a7%87%e0%a6%89/ https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a7%a9%e0%a7%9f-%e0%a6%a2%e0%a7%87%e0%a6%89/#comments Thu, 18 Mar 2021 12:51:33 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6606 করোনার ৩য় ঢেউ – করোনা আবার ভয়ংকররূপে ফিরছে – দেশে করোনায় একদিনে আরো ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে পুরুষ ৮ জন এবং নারী ৩ জন। এই নিয়ে মোট প্রাণহানী হলো ৮৬০৮ জন। দেশে ১৯টি ল্যাবে গত ২৪ ঘন্টায় ২৪ হাজার ২৭৫ নমুনা পরীক্ষায় করোনা সনাক্ত হয়েছে ১৮৬৫ জন।

করোনার ৩য় ঢেউ – করোনা আবার ভয়ংকররূপে ফিরছে

পরীক্ষা বিবেচনায় সনাক্তের হার ৭.৬৮ শতাংশ। বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে জানানো হয় দেশে মোট করোনা আক্রান্ত সংখ্যা দাড়ালো ৫ লাখ ৬২ হাজার ৭৫২ জনে। আর সুস্থ হয়েছেন আরো ১ হাজার ৫১০ জন। এই নিয়ে মোট সুস্থ ৫ লাখ ১৫ হাজার ৯শ ৮৯ জন।

আরো পড়ুনঃ সবচেয়ে দূষিত শহর নয়াদিল্লি এরপরেই ঢাকা

বরিশালে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় আবারো কঠোর অবস্থানে জেলা প্রসাশন। করোনায় ৩য় ঢেউ মোকাবেলায় এরিমধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগে সার্বক্ষনিক মনিটরিং জোরদার করা হয়েছে। গত কয়েকদিন সবাইকে সতর্ক করতে নগরীর বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন ও মাস্ক বিতরণ করেছেন প্রসাশনের কর্মকর্তারা।

প্রস্তুত করা হয়েছে ডেডিকেটেড হাসপাতালসহ ৪৩টি উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের নির্ধারিত চিকিৎসক ও নার্সদের। গতমাসে বরিশালে সংক্রমণের হার ছিলো ২.৩১৬ শতাংশ। চলতি মাসে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩.২৭ শতাংশ। বরিশাল বিভাগে একবছরে করোনায় ২০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

]]>
https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a7%a9%e0%a7%9f-%e0%a6%a2%e0%a7%87%e0%a6%89/feed/ 1
সুরা মসজিদ – সুলতানি আমলে নির্মিত এক মসজিদের গল্প https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%b8%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%ae%e0%a6%b8%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a6/ https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%b8%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%ae%e0%a6%b8%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a6/#comments Wed, 17 Mar 2021 04:40:19 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6581 সুরা মসজিদ – সুলতানি আমলে নির্মিত এক মসজিদের গল্প – কালের সাক্ষি হয়ে দাঁড়িয়ে আছে মুসলিম স্থাপত্যের অন্যতম নিদর্শন সুরা মসজিদ। দিনাজপুরের গোড়াঘাট উপজেলার হিলির চৌগাছা এলাকায় চারশ বছর আগের মসজিদটির কারুকাজ ও স্থাপত্য শৈলি দেখে অনেকের ধারণা ১৬ শতকে সুলতানি আমলে হোসেন শাহী এর শাসনকালে এটি নির্মান করা হয়েছে।

সুরা মসজিদ – সুলতানি আমলে নির্মিত এক মসজিদের গল্প

সুরা মসজিদ - সুলতানি আমলে নির্মিত এক মসজিদের গল্প

মসজিদটির বাইরের দিকের আয়তন উত্তর দক্ষিনে ৪০ ফুট ও পূর্ব পশ্চিমে ২৬ ফুট। চারফুট উঁচু মজবুত ফ্লাটফর্মের উপর মসজিদের কাঠামো গড়ে উঠেছে। এর প্রধান কক্ষের আয়তন ভিতরে ১৬.১৬ ফুট। পুরো মসজিদের দেওয়ালে অসংখ্য কোপকাটা মৌলিক টেরাকোটার অলংকন যা এই ইমারতের বাহ্যিক সৌন্দর্য্যকে বাড়িয়ে দিয়েছে।

আরো পড়ুনঃ পৃথিবীর ফুসফুস আমাজন বন পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে

এছাড়া মসজিদের দেওয়ালে সুসজ্জিত নকশা দর্শনার্থীদের দৃষ্টি আকর্ষন করে থাকে। মসজিদের উপরে বর্গাকার এক গম্বুজ বিশিষ্ট নামাজ কক্ষ এবং পূর্বভাগে ছোট তিন গম্বুজ বিশিষ্ট একটি বারান্দা রয়েছে।

প্রতিদিন কেউ আসেন মসজিদের সৌন্দর্য্য দেখতে আবার অনেকে আসেন মনের আশা পূরনের জন্য মানত করতে। সব মিলিয়ে দর্শনার্থীদের পদচারণায় বেশ জমজমাট থাকে মসজিদ প্রাঙ্গণ। মসজিদের পাশেই রয়েছে একটি সুবিশাল দিঘী। পর্যকটদের কাছে এটিও আকর্ষনের অন্যতম একটি জায়গা।

পূর্বপুরুষরা ৪শ বছর ধরে খাদেমের দায়িত্ব পালনের সূত্র ধরে এই মসজিদটি ২৬ বছর থেকে দেখাশোনা করে আসছেন স্থানীয় সেকান্দার আলী। তার দাবী মূল পটকের একটি গেট নির্মান ও নামাজের জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করা গেলে পর্যটক ও মুসল্লিদের জন্য সুবিধা হবে।

নতুন প্রজন্মকে এই মসজিদের ইতিহাস জানাতে প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনটির সংরক্ষন করার দাবী এলাকাবাসীর।

]]>
https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%b8%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%ae%e0%a6%b8%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a6/feed/ 2
বাবার ২য় বিয়ে মানতে না পেরে ছক করে ছেলে খুন করলো মাকে https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%9b%e0%a7%87%e0%a6%b2%e0%a7%87-%e0%a6%96%e0%a7%81%e0%a6%a8-%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a6%b2%e0%a7%8b-%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%95%e0%a7%87/ Sun, 11 Oct 2020 10:35:11 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6447 ছেলে খুন করলো মাকে – বাবার ২য় বিয়ে মেনে নিতে পারেন নি তাই বিদেশে বসে সৎ মাকে খুন করালেন ছেলে।মাজহারুল বিপ্লব জার্মেনিতে বসে ভাড়া করেন এক যুবককে।সেই যুবক ভাড়াটিয়া সেজে বাসায় ঢুকে হত্যা করে ওই নারী সেলিনা খানমকে।সৌদি আরব বসে বিপ্লবের এমন অপরাধে সহায়তা করেন তার চাচা মিজান।হত্যার দায়ে অভিযুক্ত যুবক নাইমকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ

রাজধানীর কামরাঙ্গিরচরের ওবাইদুল্লাহ প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর পর ২য় বিয়ে করেন শ্যালিকা সেলিনা খানমকে।হুজুর পাড়া এলাকায় নিজ বাসাতেই থাকতেন তারা বাবার এই ২য় বিয়ে পছন্দ হয়নি জার্মান প্রবাসী ছেলে মাজহারুল বিপ্লবের।এরপর থেকে সৎ মাকে হত্যার ছক কষেন।

আরো পড়ুনঃ মাহেন্দ্র সিং ধোনির ৫ বছরের কন্যাকে ধর্ষনের হুমকি!

এই মাসের ২ তারিখ সন্ধ্যায় ভাড়াটিয়া সেজে সেলিনা ওবাইদুল্লাহর দম্পতির বাসায় এক সঙ্গী নিয়ে ঢুকে জান্নাতুল ফৈরদাউস নাইম। সেলিনা খানমকে চুরিকাগাত করে খুন করে পালিয়ে যাইয় তারা। মামলার পর গোয়েন্দা পুলিশের লালবাগ বিভাগ গ্রেফতার করে নাইমকে।আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তি তে নাইম জানায় খুনের লোমহর্ষক বর্ননা।

ঢাকার এক মাদ্রাসার ছাত্র নাইম জানায় বাবার ২য় বিয়ের পর থেকে তাকে দিয়ে খুনের কথা বলে আসছিলো ছেলে বিপ্লব।তার সাথে পরিচয় করিয়ে দেয় বিপ্লবের চাচা মিজান।খুনের জন্য নাইমকে এক লাখ টাকা দেওয়ার কথা। এরি মধ্যে বিকাশে দেওয়া হয় ৬০ হাজার টাকা। নাইমের গ্রামের বাড়ি থেকে হত্যায় ব্যবহৃত চুরি ও টাকা সহ তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আরো পড়ূনঃ ১১ বছর পর এমন ঘটনার সাক্ষী হলো বাংলাদেশ

হত্যার পরিকল্পনাকারী জার্মানী ও সৌদি আরবে থাকা চাচা ভাতিজাকে চার্জশিট দেওয়ার পর দেশে ফেরানর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। সূত্রঃ যমুনা টিভি

]]>
১১ বছর পর এমন ঘটনার সাক্ষী হলো বাংলাদেশ https://www.sobarkhobor.com/%e0%a7%a7%e0%a7%a7-%e0%a6%ac%e0%a6%9b%e0%a6%b0-%e0%a6%aa%e0%a6%b0-%e0%a6%8f%e0%a6%ae%e0%a6%a8-%e0%a6%98%e0%a6%9f%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a7%80/ Fri, 09 Oct 2020 07:55:58 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6432 ১১ বছর পর এমন ঘটনার সাক্ষী – আইন শৃঙ্খলায় নিয়োজিত সংস্থাগুলোর তথ্য বলছে গত সেপ্টেম্বরে কোথাও ক্রসফায়ার বা বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেনি। প্রায় ১১ বছর ৫ মাস এমন ঘটনার সাক্ষী হলো বাংলাদেশ।মানবাধিকার সংঘটনগুলো বলছে ২০০২ সালের শুরুতে অপারেশন ক্লিন হার্টের নামে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড শুরু হয়।এরপর ২০০৪ সাল থেকে র‍্যাব ও পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে একের পর এক ঘটনা ঘটে।

বিভিন্ন সংস্থার হিসেবে ২০০১ থেকে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে বিচার বহির্ভূত হত্যার স্বীকার হন ৩ হাজার ৪৪ জন। এর মধ্যে ২০১৮ সালে মাদক বিরোধী অভিযান শুরু হলে বন্দুকযুদ্ধে নিহতের সংখ্যা বেড়ে যায়।

গবেষকরা বলছেন এই ঘটনায় প্রমান হয় সরকার চাইলেই এই ধরনের বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড রুখে দেওয়া সম্ভব।তবে এই দুইমাসের চিত্র দিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করতে নারাজ বিশেষজ্ঞরা।তারা বলছেন একমাসে বন্দুকযুদ্ধ না হওয়ায় স্পষ্ট যে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী চাইলেই ক্রসফায়ার ছাড়াই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

আরো পড়ুনঃ সড়ক পরিবহন আইন – দুর্ঘটনা হলেও ক্ষতিপূরণ পাবেন না যাত্রী

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের আগে ক্রসফায়ারের নামে বিচার বহির্ভুত হত্যাকান্ডের সর্বশেষ দুই শিকার কক্সবাজার মেজর সিনহা মুহাম্মদ রাশেদ খান ও দুই আগস্ট সিলেটের আবদুল মান্নান ওরফে মুন্না আহমদ।

]]>
সড়ক পরিবহন আইন – দুর্ঘটনা হলেও ক্ষতিপূরণ পাবেন না যাত্রী https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%b8%e0%a7%9c%e0%a6%95-%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%ac%e0%a6%b9%e0%a6%a8-%e0%a6%86%e0%a6%87%e0%a6%a8/ Thu, 08 Oct 2020 03:22:27 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6429 সড়ক পরিবহন আইন – নতুন সড়ক পরিবহন আইনে যাত্রী ও পথচারীর বীমা ছাড়াই গাড়ি চলতে পারবে সড়কে।সেই সঙ্গে কোন ধরনের দূর্ঘটনা হলে ক্ষতিপূরণ পাবেন না যাত্রীরা। বিআরটি এ বলছে নতুন আইনে বীমার বাধ্যবাধকতা না থাকলেও তৃতীয় পক্ষের জন্য কল্যান তহবিল গঠন করা হচ্ছে।পরিবহণ বিশেষজ্ঞরা বলছেন সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ও দূর্ঘটনার ক্ষয়ক্ষতি কমাতে অবশ্যই বীমার প্রয়োজন রয়েছে।

১৯৮৩ সালের মোটরযানের অধ্যাদেশের ১০৯ ধারা অনুযায়ী যানবাহনের জন্য তৃতীয়পক্ষ বা যাত্রীর ঝুকি বীমা বাধ্যতামূলক ছিলো।এই আইনের ১৫৫ ধারায় বীমা না থাকলেও দণ্ডের বিধান ছিলো।কিন্তু ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহণ আইনের ধারা ৬০ এর ১,২ ও ৩ উপধারা অনুযায়ী বীমা বাধ্যতামূলক নয়।তাই বীমা না থাকলেও মামলা দিতে পারবেনা আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

গতবছরের পহেলা নভেম্বর থেকে নতুন আইন কার্যকর হলেও এ নিয়ে অনেকের মধ্যেই নেয় সচ্চ ধারনা। তাই বিষয়টি অবহিত করে এরি মধ্যে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে চিঠিও দিয়েছে BRTA।সংশ্লিষ্টরা বলছেন কোন দুর্ঘটনায় পরিবহণ কিংবা যাত্রীর ক্ষতি হলে বীমার মাধ্যমে ক্ষতি পূরণ পাওয়া যেতো।তাই তৃতীয় পক্ষের জন্য বীমা বন্ধ করা হলেও প্রথম পক্ষের বীমা অবশ্যই বাধ্যতামূলক করা উচিৎ।

সবার আগে সর্বশেষ খবর পেতে ও পড়তে ভিজিট করুনঃ সবার খবর

বিআরটি এ বলছেন তৃতীয় পক্ষের বীমার মাধ্যমে যাত্রীরা তেমন লাভবান হতেন না।তাই নতুন আইনে এটা বাধ্যতামূলক করা হয়নি।তবে যাত্রীদের ক্ষতিপূরনের জন্য কল্যান তহবিল গঠন করা হচ্ছে।তবে দুর্ঘটনার পর যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ যাতে নিশ্চিত হয় সেই ব্যাপারে সরকারকে সজাগ থাকতে হবে বলে অভিমত বিশ্লেষকদের।

]]>
গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনা তে নতুন মোড়, বাবাকে দায়ী করলেন মেয়ে (ভিডিও) https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%97%e0%a7%83%e0%a6%b9%e0%a6%ac%e0%a6%a7%e0%a7%82%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%98%e0%a6%9f%e0%a6%a8%e0%a6%be/ Thu, 08 Oct 2020 02:43:19 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6426 গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনা – নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারী নির্যাতনের ঘটনা তে ভুক্তভোগীর স্বামীও জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন তার মেয়ে।ঘটনার রাতে মাকে নির্যাতনের সময় বাবার ভূমিকার সমালোচনা করেন তিনি।এদিকে এই ঘটনায় দায়ের করা আলাদা মামলায় আজ তিন আসামীকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।ধর্ষনের নতুন মামলা হয়েছে দেলোয়ার সহ দুজনের বিরুদ্ধে।

বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে নারীকে নির্যাতনের ঘটনায় ওই এলাকা পরিদর্শন করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জন প্রতিনিধি ও মানবাধিকার সংস্থার একাধিক টিম। ভিকটিম ও স্বজনদের সাথে আলাদা করে কথা বলেন তারা এই সময় ভিকটিমের মেয়ে ওই রাতে নির্যাতনে সম্পৃক্ততার অভিযোগ আনেন তার বাবার বিরুদ্ধে।

আরো পড়ুনঃ  একবছর আগে ওই গৃহবধূকে দু’দফা ধর্ষণ করে দেলোয়ার

দুপুরে আদালতে এজহারভুক্ত আসামী সাজু ছাড়াও নতুন গ্রেফতার সোহাগ ও নুর হোসেন রাসেলকে হাজির করা হয় তদন্ত কর্মকর্তা আলাদাভাবে রিমান্ডের আবেদন করলে বিচারক সাজুকে ছয়দিন এবং সোহাগ ও রাসেলের দুইদিন করে পুলিশ হেফাজত মঞ্জুর করেন।

সূত্রঃ যমুনা টিভি

]]>
শিক্ষকের ধর্ষণে মা ৭ম শ্রেনির ছাত্রী, চাচার ধর্ষণে মা ভাতিজি https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%95%e0%a7%81%e0%a6%ae%e0%a6%bf%e0%a6%b2%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%a3/ Wed, 07 Oct 2020 07:32:07 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6422 কুমিল্লায় ধর্ষণ – শিক্ষক কিংবা নিকট আত্মীয় কারো কাছেই কি নিরাপত্তা নয় নারীরা?কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে কোচিং সেন্টারের শিক্ষকের ধর্ষনে মা হয়েছে ৭ম শ্রেনির ছাত্রী আর নাঙ্গলকোটে চাচার ধর্ষনে মা হয়েছে ভাতিজি।কুমিল্লায় ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের ঘটনা বাড়ায় উদ্বেগ বাড়ছে অভিভাবকদের।

বিশ্লেষকদের মতে ভয়ভীতি আর বিচারের দীর্ঘসূত্রতার কারনে বেশিরভাগ ঘটনা আপোষে মিটিয়ে নিচ্ছে ভুক্তভোগী পরিবারগুলো।

বাড়িতে নতুন অতিথি আসলেও খুশির লেশমাত্র নেয় পরিবারটিতে।শিশু সন্তানের অনাগত ভবিষ্যত নিয়ে রাজ্যের দুশ্চিন্তা।কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে দেড় মাস আগে মা হয়েছে ৭ম শ্রেনির এক কিশোরী।অভিযোগ কোচিং সেন্টারে এক শিক্ষক কৌশলে মেয়েটিকে আটকে রেখে ধর্ষন করে।

স্থানীয় শালিস বৈঠকে সমাধান না পেয়ে আদালতে দারস্থ হয়েছে ভুক্তভোগী পরিবারটি।ঘটনা জানাজানির পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত তারেকুর রহমান।

নাঙ্গলকোটে ধর্ষন মামলায় কারাগার থেকে জামিনে বের হওয়ার পর চাচার সংবর্ধনার ভিডিও ভাইরাল হলে সমালোচনার ঝড় উঠে।সম্প্রতি মা হয়েছে ওই কিশোরী। ডিএনএ পরীক্ষায় সম্পৃক্ততা মিলেছে চাচার।

আরো পড়ুনঃ একবছর আগে ওই গৃহবধূকে দু’দফা ধর্ষণ করে দেলোয়ার

পুলিশ সুপার কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী গেল দুইমাসে কুমিল্লায় ধর্ষনের মামলা হয়েছে ৩৪ টি।বিচারের বিচারের দীর্ঘসূত্রতার কারনে নারীর প্রতি সহিংসতা বাড়ছে বলে মনে করেন আইনজীবী সমাজ।

সূত্রঃ যমুনা টিভি

]]>
একবছর আগে ওই গৃহবধূকে দু’দফা ধর্ষণ করে দেলোয়ার https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%ac%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%a8/ Wed, 07 Oct 2020 03:01:46 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6417 বিবস্ত্র করে নির্যাতন – নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের এক বছর আগেও দুইদফা ধর্ষণ করেছিলো বাহিনী প্রধান দেলোয়ার।ভুক্তভোগীর করা দুটি মামলার কোনটিতেই নাম নেই তার।নির্যাতিত নারীর সাথে কথা বলে এইসব তথ্য জানিয়েছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন।আজ দেলোয়ারকে অস্ত্র মামলায় রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।এছাড়া প্রধান আসামী বাধল ও সোহাগও পুলিশের রিমান্ডে।

বেগমগঞ্জে বিবিস্ত্র করে নারী নির্যাতন ও ভিডিও ফেসবুকে ছড়ানোর ঘটনায় মামলা করা হয় দুটি।ভিকটেমের করা পর্ণগ্রাফি ও নারী নির্যাতনের মামলার কোনটির এজহারে এমনকি ২২ ধারার জবনবন্ধিতে নাম নেই বাহিনী প্রধান দেলওয়ার হোসেনের।

ভিকটিমের সাথে কথা বলার পর মানবাধিকার কমিশন ব্রিফিংয়ে জানায় দুই দফায় ওই নারীকে ধর্ষণ করে দেলয়ার।তার বিরুদ্ধে আলাদা ধর্ষন মামলা দায়ের হবে বলে জানিয়েছেন তদন্ত কমিটির প্রধান।

একটি অস্ত্র মামলায় নারায়ণগঞ্জে গ্রেফতার দেলোয়ারকে বিকেলে আদালতে তোলা হয়।পুলিশ তিনদিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিচারক ফাহমিদা খাতুন দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এইদিকে গ্রেফতার প্রধান আসামী বাদল ও সোহাগকে আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করেছে পুলিশ।

আরো পড়ুনঃ নোয়াখালীর ধর্ষণ ঘটনার মতো গোপালগঞ্জে ধর্ষন ও ভিডিও ধারন

চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডি আই জি জানিয়েছেন মামলাগুলো সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত চলছে।ভিকটিমের করা দুটি মামলায় আজহার ভুক্ত আসামী ৯জন অজ্ঞাত আরো ১০-১২ জন কে আসামী হিসেবে উল্লেখ আছে।

সূত্রঃ যমুনা টিভি

]]>
নোয়াখালীর ধর্ষণ ঘটনার মতো গোপালগঞ্জে ধর্ষন ও ভিডিও ধারন https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%a8-%e0%a6%93-%e0%a6%ad%e0%a6%bf%e0%a6%a1%e0%a6%bf%e0%a6%93-%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%a8/ Wed, 07 Oct 2020 00:59:46 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6410 ধর্ষন ও ভিডিও ধারন – নোয়াখালীতে বিবিস্ত্র করে নারী নিপীড়নের রেশ এখনো কাটেনি এরি মধ্যে একি রকম নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেলো গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায়।বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দ্বারা নবম শ্রেনির স্কুল ছাত্রী নির্যাতনের ভিডিও ধারন করে ব্ল্যাকমেইল করার অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার ওই ছাত্রী প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফিরছিলো পথে একি উপজেলার বাসিন্দা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আলী হোসেন ও তার বন্ধু মাসুদ হাওলাদার তাকে ভয় দেখিয়ে একটি মাছের ঘেরপাড়ে নিয়ে যায় এবং সেখানে মেয়েটিকে পিঠিয়ে নিস্তেজ করে আলী হোসেন ধর্ষন করে এমন অভিযোগ ভুক্তভোগীর।

আরো পড়ুনঃ ৯৯৯ এ কল দিয়ে রক্ষা পেল দুই কিশোরী

নির্যাতনের ভিডিও মোবাইলে ধারন করে মাসুদ এবং বিষয়টি কাউকে বললে ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখানো হয়।মেয়েটি এই বিষয়ে তার পরিবারকে জানালে আজ কোটালীপাড়া থানায় ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে মামলার পর থেকে অভিযুক্ত দুইজনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

]]>
চট্টগ্রামের খবর – ৯৯৯ এ কল দিয়ে রক্ষা পেল দুই কিশোরী https://www.sobarkhobor.com/%e0%a6%9a%e0%a6%9f%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%97%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%96%e0%a6%ac%e0%a6%b0/ Wed, 07 Oct 2020 00:16:34 +0000 https://www.sobarkhobor.com/?p=6407 চট্টগ্রামের খবর – ইপিজেডের একটি গার্মেন্টেসের শ্রমিক ছিলো দুই কিশোরী কিন্তু করোনাকালীন সময়ে চাকরি হারিয়ে অসহায় হয়ে পরে তারা।মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চাকরি দেওয়া নাম করে শওকত এবং রাকীব নামে দুইজন তাদের বাকলিয়ার একটি বাসায় আটকে রাখে।পরে তাদের জোরপূর্বক দেহব্যবসার চেষ্টা করা হলে তারা কৌশলে ৯৯৯ ফোন দিয়ে পুলিশের সহযোগীতা চায়।

৯৯৯ ফোন দিয়ে ঠিকানা বলতে না পারায় উদ্ধারের জন্য তাদের শনাক্তে পুলিশকে বেশ বেগ পেতে হয়।পরবর্তীতে নানা কৌশল কাটিয়ে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে।

উপ পুলিশ কমিশনার এম এম মেহেদী হাসান জানানঃ ব্যাপক চিরুনি অভিযানের মাধ্যমে মেয়ে দুটোকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়ে তার পাশাপাশি দুইজন অপরাধি যারা এই দুই কিশোরিকে বন্ধি করে রেখেছে তাদের আটক করতে সক্ষম হয়েছি।তাদের এই চক্রের সাথে আরো দুইজন জড়িত আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি চক্রটিকে ধরতে সক্ষম হবো।

আরো পড়ুনঃ লাশের গাড়িতে ফেন্সিডিল ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে সারা দেশে – ভিডিও

এই ঘটনায় বাকলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে আর দুই কিশোরির জবানবন্ধী নিয়েছেন মেট্রোপলিটন মেজিস্ট্রেট আবু সালেহ মুহাম্মদ নোমান।

সূত্র সময় টিভি।

]]>