Home / খেলার খবর / ক্রিকেটের ঐতিহাসিক মুহুর্ত চন্দ্রপাল ও তার ছেলে এক সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়লেন

ক্রিকেটের ঐতিহাসিক মুহুর্ত চন্দ্রপাল ও তার ছেলে এক সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়লেন

সবার খবর, স্পোর্টস ডেস্ক: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটে একটি ঐতিহাসিক মুহুর্ত। সুপার-৫০ কাপ টুর্নামেন্ট চলছে ওয়েস্ট ইন্ডিজে। দ্বিতীয় সেমিফাইনালের খেলাটি ছিল গায়ানা জাগুয়ার্স ও ওয়াইন্ডওয়ার্ডস আইল্যান্ডের সাথে। সেই ম্যাচে শিব নারায়ান চন্দ্রপল ও তার ছেলে ট্যাগে নারায়ান চন্দ্রপল এক সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়লেন।
চন্্রপল
ওয়াইন্ডওয়ার্ডস আইল্যান্ড প্রথমে ব্যাট করে ২৮৬ রান করে। টাইরন থিওফাইল ১০৭ এবং কাভেম হজ ৫৭ রানের একটি ঝকঝকে ইনিংস খেলেন।
গায়ানা জাগুয়ার্সকে ৪৭ ওভারে ২৮৪ রান তুলতে হতো। ট্যাগে নারায়ান চন্দ্রপল ও চন্দ্রপল হেমরাজ ইনিংসের গোড়াপত্তন করেন। দলিয় চার রানের মাথায় হেমরাজ আউট হয়ে যান। ৩ নং পজিসানে ব্যাট করতে আসেন ট্যাগে নারায়ান চন্দ্রপলের বাবা শিব নারায়ান চন্দ্রপল। ৪৩ বছরের শিব নারায়ন চন্দ্রপল সব চাইতে বেশি ১৬৪ টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে। টেস্টে তিনি ১১৮৬৭ রান করেন যার মধ্যে ৩০ টি সেঞ্চুরিও আছে। তার কেরিয়ার শুরু হয় ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১৯৯৪ সালে জর্জটাউনে। এবং তার শেষ ম্যাচও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।
 চন্দ্রপল ও তার ছেলে.
সেই ম্যাচটি ছিল ব্রীজ টাউনে ২০১৫ সালে। বাবা-ছেলে এই ম্যাচটি যদিও বাচাতে পারলেন না। তাদের মধ্যে ১৩ রানের পার্টনারশিপের পরিসমাপ্তি ঘটে একটি দুর্ভাগ্যজনক রান আউট দিয়ে। বোলার রায়ান জনের হাতে লেগে বল সরাসরি নোনস্ট্রাইক প্রান্তের স্টামে গিয়ে লাগে। আউট হয়ে যান ছেলে ট্যাগে নারায়ান চন্দ্রপল। ওই ম্যাচে দুটি ছয় এবং ৪ টি চারের বিনিময়ে শিব নারায়ান চন্দ্রপল ৩৮ বলে ৩৪ রান করেন। ২৩১ রানে গায়ানা জাগুয়ার্সের ইনিংস সম্পুর্ণ গুটিয়ে যায়। ফলে ডাকওয়ার্থ লুইস সিস্টেমে ওয়াইন্ডওয়ার্ডস আইল্যান্ড ৫২ রানের জয় পায় এবং ফাইনালে পৌঁছে যায়। কিন্তু ম্যাচটিকে সবাই মনে রাখবে ছেলে এবং বাবার পার্টনারশিপের কারনে।
আরও পড়ুন: রাশিদ খানের পর আর এক আফগান ক্রিকেটার নিলামে চমক দেখালেন

Check Also

bangladesh vs srilanka 2020

অনিশ্চয়তায় পূর্ণ টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর

Bangladesh VS Srilanka 2020: বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা যাওয়ার সম্ভাব্য তারিখ ৭ থেকে ১০ সেপ্টেম্বর। তবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *