Breaking News
Home / খেলার খবর / মুনাফ প্যাটেল: ৩৫ টাকার শ্রমিক থেকে জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলা এক নায়কের কাহিনী

মুনাফ প্যাটেল: ৩৫ টাকার শ্রমিক থেকে জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলা এক নায়কের কাহিনী

সবার খবর, ওয়েব ডেস্ক: ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের এক সময়ের নির্ভরযোগ্য ফাস্ট বোলার মুনাফ প্যাটেল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা করে দিয়েছেন। ১৫ বছরের ক্রিকেট কেরিয়ারে মুনাফ ভারতের হয়ে ১৩ টি টেস্ট ও ৭০ টি আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচে খেলেন। মুনাফ প্যাটেল তার অভিষেক ম্যাচ খেলেন ২০০৬ সালে। আইপিএলে প্রথমে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও পরে গুজরাট লায়ন্স এর হয়ে ম্যাচ খেলেছিলেন।
মুনাফ

জাতীয় দলে যায়গা পাওয়ার আগের মুনাফ প্যাটেল

মুনাফ প্যাটেল গুজরাটের ভারুচ জেলার একটি ছোট্ট গ্রামে জন্মেছিলেন। তাঁর জোরে বল করার নেশায় ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলের দরজাটা খুলতে সাহায্য করে। ফলে জাতীয় টিমে এন্ট্রি হয় একসময়ের সবচাইতে জোরে বোলার মুনাফ প্যাটেলের। কিন্তু মুনাফের জীবনটা আর সকল ক্রিকেটারের মত ছিল না। হতদরিদ্র মানুষেরা যেভাবে দিনযাপন করেন ঠিক সেই ভাবেই মুনাফকে দিনযাপন করতে হতো। ভারতীয় দলে জায়গা পাওয়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত তিনি একটি টাইলসের দোকানে কাজ করতেন। সেই ছোটবেলা থেকেই এই কাজে অভ্যস্ত ছিলেন তিনি। কাজ থেকে বাড়ি ফিরে স্বপ্ন দেখতেন ক্রিকেট খেলা নিয়ে। দিনে মাত্র ৩৫ টাকা পেতেন টাইলসের দোকানে কাজ করে। পরিশ্রম ছিল খুব কঠিন।দিনে ৮ ঘন্টা কাজ করতে হতো তাকে। ৮ ঘণ্টায় ৩৫ টাকা পেতেন। এভাবে তো আর দিন চলতে পারে না। কিন্তু কি আর করার আছে? সে সময় তার বাবা কোনরকমে তাদের পরিবারের মুখে দু-বেলা দু-মুঠো ভাত তুলে দিতে পারতেন। তাইতো মুনাফ বলেন, আজ যা কিছু আমি হয়েছি সবই ক্রিকেটের জন্য। ক্রিকেট ছাড়া আমি মুনাফ প্যাটেল হতে পারতাম না। হয়তো গ্রামের মানুষও আমাকে চিনতে পারত না। তবে হ্যাঁ, যখন জাতীয় দলে হয়ে খেলার ডাক পাইনি তার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত গ্রামের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে খেলার জন্য ডাক পেতাম। আমার বল খেলার মত তেমন ব্যাটসম্যান আশেপাশে ছিল না। তাই আমার নামটা ছড়িয়ে পড়েছিল গ্রাম থেকে শহর পর্যন্ত।
মুনাফ প্যাটেল
মুনাফ একটা ইন্টারভিউতে বলেছিলেন, আজ যদি ক্রিকেটার না হতে পারতাম হয়তো গ্রামের কোন এক জমিতে শ্রমিকের মত কাজ করতাম। অথবা কোন এক কোম্পানির লেবার। কারণ ওই গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই টাইলস কোম্পানিতে কাজ করে থাকে। তিনি বলেন, কল্পনাও করতে পারেনি আমি এক দিন জাতীয় দলের হয়ে ক্রিকেট খেলব।
মুনাফ প্যাটেলের জীবন
গত ১০ নভেম্বর মুনাফ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমার আজ আর কোন দুঃখ নেই। আমি যেসব জাতীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে খেলেছি তারা সকলেই প্রায় অবসর নিয়ে নিয়েছে। কেবলমাত্র বাকি আছে ধোনি। এই কারণে আজ কষ্ট পায় না। আমার মন আজও চাই না যে, ক্রিকেট ছেড়ে দিই। কারণ ক্রিকেট ছাড়া আমি আর কিছুই পারি না। ২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ভারত হওয়ার পেছনে বড় অবদান আছে মুনাফের। হয়তো আজ আর আমাদের মনে নেই মুনাফের অবদান। বিশ্বকাপ টুর্ণামেন্টে তৃতীয় বোলার হিসেবে সর্বোচ্চ ১১ টি উইকেট তুলে নেন তিনি। মুনাফের কথা তেমন কেউ মনে রাখেনি। কিন্তু নিঃশব্দে ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে কাজের কাজটি করে গেছেন তিনি। তখন শুধুমাত্র শচিন তেন্ডুলকর, যুবরাজ সিং ও জাহির খানকে নিয়ে চর্চা হতো। তারকার ভীড়ে হারিয়ে গেছিলেন তিনি। সে সময়ে ভারতীয় ক্রিকেট দলের বোলিং কোচ এরিক সিমন্স বলেছিলেন, মুনাফ প্যাটেল এই বিশ্বকাপের অঘোষিত নায়ক।
আরও পড়ুন: ৩৬০ ডিগ্রী বোলিং অ্যাকশন নিয়ে চুড়ান্ত বিতর্ক। ব্যাটসম্যান কেনো সুইচ হিট মারে?

Check Also

রবি

বিরাট কোহলিদের হারের কারণে ছাটাই হতে পারেন শচীন, সৌরভ, লক্ষণ

সবার খবর, স্পোর্টস ডেস্ক: আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পরাজিত হওয়ার পরে দলের কোচিং স্টাফদের নিয়ে …